আর্কাইভস

সংগ্রহে রাখুন তথ্যগুলোঃ জাতীয় পরিচয়পত্র হারালে, ভুল থাকলে অথবা নতুন করতে গেলে কি করবেন?

full_1768446196_1413869821জাতীয় পরিচয় পত্র হারিয়ে গেলে, ভুল থাকলে অথবা নতুন পরিচয়পত্র করতে গেলে কি করবেন? এছাড়াও অনেককেই জাতীয় পরিচয়পত্রের বিভিন্ন ভুলভ্রান্তি নিয়ে ভোগান্তি পোহাতে হয়। আবার যারা নতুন পরিচয়পত্র করতে চান তারাও এ বিষয়ে অনেকে অজ্ঞ। কিভাবে করব, কোথায় করব, কি কি লাগবে ইত্যাদি বিষয় জানেন না। আর এ সমস্যা সমাধানের জন্য কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করলে আশা করি সবাই উপকার পাবেন।

পরিচয়পত্রে নিজের নাম, পিতা, মাতা, স্বামী, স্ত্রী ও অভিভাবকের নাম, জন্মতারিখ, রক্তের গ্রুপ এবং ঠিকানা সংশোধন কিংবা বদল করতে হতে পারে। এ জন্য প্রার্থীকে সাদা কাগজে ‘ছবিসহ ভোটার তালিকা প্রণয়ন এবং জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদানে সহায়তা প্রদান প্রকল্প’- এর পরিচালকেরকাছে আবেদন করতে হবে। এই আবেদন আগারগাঁওয়ের ইসলামিক ফাউন্ডেশন ভবনের সপ্তম তলায় প্রকল্প কার্যালয়ে পাওয়া ছক বা ফরমেও করা যায়।

ফরম পূরণ করে প্রকল্প কার্যালয়ের নির্দিষ্ট কাউন্টারে জমা দেওয়ার পর সেখান থেকে প্রাপ্তি স্বীকারপত্র (প্রাপ্তি নম্বরসংবলিত) দেওয়া হয়। এতে সংশোধিত জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার তারিখ উল্লেখ থাকবে। এই তারিখের সাত দিনের মধ্যে বিস্তারিত পড়ুন

ল্যাপটপের ব্যাটারির ব্যবহার যেভাবে

ব্যাটারির চার্জ যতক্ষণ থাকার কথা, ততক্ষণ থাকছে না। ব্যাটারি গরম হয়ে যাচ্ছে। ল্যাপটপের ব্যাটারি নিয়ে এমন কথা প্রায়ই শোনা যায়। ব্যাটারির কিছু যত্ন নিলে আর ঠিকঠাক এটি ব্যবহার করলে অনেক সমস্যাই দূর হয়ে যায়।

ব্যাটারির সাধারণ যত্ন
l পরিবেশগত বাহ্যিক তাপ ব্যাটারির শক্তিকে কমিয়ে দেয়। তাই সরাসরি সূর্যের আলোয় ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না।

l চার্জের জন্য ল্যাপটপের আসল চার্জার ব্যবহার করুন।

l ল্যাপটপের ভেতরের তাপ যাতে সহজে বাইরে বের হয়ে আসে, এ জন্য বাতাস বেরোনোর রাস্তা পরিষ্কার রাখতে হবে।

l পাতলা কাপড়ে তরল পরিষ্কারক এয়ার ভেন্ট এবং ব্যাটারির সেল মুছে নিতে পারেন।

l চার্জ প্রায় ৪০ শতাংশ রেখে ব্যাটারি খুলে শুষ্ক ও খোলামেলা জায়গায় রাখলে সেলের মান বাড়ে।

যা যা করা যাবে না

l এক্সটারনাল যন্ত্রাংশ বেশি পরিমাণে বিদ্যুৎশক্তি অপচয় করে থাকে। বহনযোগ্য হার্ডডিস্ক থেকে সরাসরি ফাইল না খুলে কপি করে তারপর কাজ করুন।l স্ক্রিন সেভার বেশি চার্জ খরচ করে। তাই এটি বন্ধ রাখুন।

l ল্যাপটপের সিডি বা ডিভিডি ড্রাইভে অযথা কোনো ডিস্ক রাখলে ডিস্ক ঘোরার সময় চার্জ খরচ হয় বেশি।

l গ্রীষ্মকালে গাড়িতে ল্যাপটপ চালালে অতিরিক্ত গরমে ব্যাটারি ক্ষতিগ্রস্ত হয়; তাই এটি করা যাবে না।

পেনড্রাইভের মাধ্যমে সেটআপ দিন WIN 7 অথবা WIN 8 অপারেটিং সিস্টেম

উপকরনঃ

১) একটি পেনড্রাইভ

২) উইন্ডোজ সেভেন বা এইট এর ইন্সটল ফাইল বা ডিভিডি

কাজের ধারাঃ

১। এটি করার জন্য আপনাকে অন্য একটি কম্পিউটারের সাহায্য নিতে হবে যেটিতে ডিভিডি ড্রাইভ চালু অবস্থায় আছে।যেই পেন্ড্রাইভ এর সাহায্যে উইন্ডোজ ইন্সটল করতে চান সেটিও কম্পিউটারে লাগান।এবার Start >All Programs>Accessories>Command prompt এ মাউসের রাইট বাটন ক্লিক করে “Run as Administrator ” হিসেবে চালু করুন।অথবা স্টার্ট মেনু থেকে “cmd” লিখে সার্চ দিয়ে Ctrl+shift+Enter চেপে চালু করুন।

২।এবার লিখুন DISKPART এবং লেখা হলে এন্টার বাটন চাপুন।দেখবেন ডিস্কপার্ট চালু হয়ে গেছে।

এবার LIST DISK লিখে এন্টার চাপলে আপনার কম্পিউটারে মোট ড্রাইভ সমূহ ও পেন্ড্রাইভ দেখাবে।এখানে পেন্ডড্রাইভ যত নাম্বারে থাকবে সেই নাম্বারটি খেয়াল করবেন।এটি 1 বা  2 হতে পারে।১ নাকি ২ নাম্বারে দেখাচ্ছে সেটি বোঝার জন্য পাশে ড্রাইভের সাইজ দেখলে বুঝতে পারবেন।এবার নীচের কমান্ডগুলো পর্যায়ক্রমিকভাবে লিখে এন্টার বাটন এ ক্লিক করুন।প্রতিটি লাইন কমান্ড লেখার পর এন্টার চাপুন।একসাথে লিখে এন্টার দিলে হবে না।যেহেতু,আমার পেন্ড্রাইভ ১ নাম্বারে দেয়া আছে তাই আমি SELECT DISK 1 লিখেছি।আপনারটি যদি ২ নাম্বারে দেখায় তাহলে SELECT DISK 2 দিবেন।

SELECT DISK 1

CLEAN

CREATE PARTITION PRIMARY

SELECT PARTITION 1

ACTIVE

FORMAT FS=NTFS

(পেন্ড্রাইভ ফরম্যাট হতে কিছুক্ষন সময় নিতে পারে। এটা পেন্ড্রাইভের সাইজের উপর নির্ভর করবে।)

ASSIGN

EXIT

1

Create Bootable pendrive Windows 7 or 8

Create Bootable pendrive Windows 7 or 8 2

এবার ডিভিডি ড্রাইভে থাকা উইন্ডোজের সিডি/ডিভিটি পুরোটি কপি করে পেন্ড্রাইভে পেষ্ট করুন।ব্যাস কাজ শেষ হলে পেন্ড্রাইভটি সেটাপ দেওয়ার উপযোগী হয়ে যাবে।এখন পেন্ড্রাইভটি কম্পিউটারে লাগালেই সেটাপ হওয়া শুরু হবে।

অপারেটিং সিস্টেমের গতি বৃদ্ধি করুণ

অনেকদিন হল আপনার কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করেছেন। কিছুদিন হল আপনার কম্পিউটার ধীরে কাজ করছে। তাহলে আর বেশী চিন্তা না করে তাড়াতাড়ি নিচের ডাউনলোড লিঙ্কের সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করে দেখুন আপনার কম্পিউটারের পূর্বের হারানো সেই গতি ফিরে পেয়েছে।

DOWNLOAD

বিভিন্ন ধরণের ইউনিকোড বাংলা ফন্ট

আমাদের কম্পিউটারে ইউনিকোডে বাংলা লেখার সময় লেখার স্টাইল দিতে খুব সমস্যা হয়। কারণ আমাদের কাছে খুব কম ইউনিকোড ফন্ট থাকে। এজন্য আজ আমি আপনাদের জন্য অনেকগুলি ইউনিকোড ফন্ট পোস্ট করলাম। ডাইনলোড করার পর আনজিপ করে নিন।

Download